Thursday, April 16, 2020

ত্রাণ দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিন : প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে কর্মহীন ও দুস্থদের দেয়া সরকারি ত্রাণ দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে মাঠ পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাদের কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘সরকারের চেয়ে শক্তিশালী কেউ নেই, আমরা আপনাদের সঙ্গে আছি।'
বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) বিকেল জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী টেলিফোনে এ কথা বলেন।
করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে দেশে প্রথমে গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করে সরকার। পরে পরিস্থিতির অবনতির প্রেক্ষিতে কয়েক দফায় ছুটি ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। জরুরি সেবামূলক সংস্থা, প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব বন্ধ ঘোষণা করা হয়, বন্ধ করে দেয় সব ধরনের গণপরিবহনও। এ সময়ে সরকার সবাইকে ঘরে অবস্থানের পরামর্শ দেয়।
এমন পরিস্থিতিতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমজীবী মানুষ। এসব কর্মহীন শ্রমজীবী মানুষ ও দুস্থদের সহায়তায় সরকার ত্রাণ সহায়তা দিচ্ছে। একই সঙ্গে ১০ টাকা কেজি দরে বিশেষ ওএমএস এবং খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকা কেজি দরে চালও দেয়া হচ্ছিল। কিন্তু দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ত্রাণ ও এসব কর্মসূচির চাল আত্মসাৎ ও চুরির ঘটনা ঘটে। মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের তৎপরতায় এসব উদঘাটিও হচ্ছে। জনপ্রতিনিধিরা এসবের সঙ্গে জড়িত বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।
ত্রাণ আত্মসাতের ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকায় ইতিমধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে বেশ কয়েকজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সাময়িক বরখাস্ত করে আদেশ জারি করেছে। কেন তাদের স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হবে না- সেই বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করা হয়েছে।
এই পরিস্থিতিতে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের কার্যক্রমের বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার এই সময়ে যে মাঠে যে টিমটা কাজ করছে, জেলা প্রশাসক (ডিসি) হচ্ছেন প্রধান সমন্বয়ক। তার নেতৃত্বেই কাজ হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ নিয়ে অনিয়মকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। ৬১ হাজার ৫৫৭ জনপ্রতিনিধি সারাদেশে আছেন। এরমধ্যে হাতেগোনা কয়েকজন অনিয়ম করছেন।’
সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তাদের ভয় পাওয়ার মতো কিছু নেই। সরকারের চেয়ে শক্তিশালী কেউ নেই। আপনারা অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন, আমরা উপরে আছি, আমরা এটাকে কঠোরভাবে দেখছি।’
‘অপরাধী অপরাধীই, সে কোনো দলের না। তাকে ধরে ফেলুন। যারা এই সময়ে এই রকম কাজ করতে পারে, তাদের কোনো ছাড় নেই, কোনো মাফ নেই।’
ফরহাদে হোসেন আরও বলেন, ‘আমি মনে করি সরকারি-কর্মকর্তাদের নিজের দায়িত্ব মনে করে যেভাবে ত্রাণ আত্মসাৎকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে, তা চালিয়ে যাবে। আমাদের সম্পূর্ণ সমর্থন তাদের প্রতি রয়েছে।’
সরকারি কোনো কর্মকর্তা এরসঙ্গে জড়িত থাকলে তাদেরও ক্ষমা নেই বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।
সূত্র,জাগো নিউজ

0 comments: