Monday, May 4, 2020

২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা ১১ জুন

করোনাভাইরাসে টানা সাধারণ ছুটির মধ্যে জুন মাসে বাজেট পেশ নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে অর্থ মন্ত্রণালয় আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে বলেছে যে আগামী বাজেট সময় মতই হবে। আসছে ১১ জুন ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট জাতীয় সংসদে উত্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।
জাতীয় সংসদে বাজেট উত্থাপনের বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের বাজেট শাখার অতিরিক্ত সচিব মো. হাবিবুর রহমান স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিবের কাছে পাঠানো হয়েছে।
চিঠিতে বলা হয়, আগামী ১১ জুন বিকেল ৩টায় অর্থমন্ত্রী আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট উত্থাপন করবেন। একই সঙ্গে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট সংসদে উত্থাপন করবেন।
সোমবার অর্থমন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, আসন্ন বাজেটের সাম্ভব্য আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা। যা চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৫ শতাংশ বেশি। ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাজেটের আকার ছিল ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা।
এর আগে সংসদে মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে ২০২০-২০২১ অর্থবছরের বাজেট অনুমোদন দেওয়া হবে। প্রতিবছরই বাজেট পেশ করার আগে মন্ত্রিসভার অনুমোদন নেওয়ার সুবিধার্থে জাতীয় সংসদ ভবনে মন্ত্রিসভার বৈঠক আয়োজন করা হয় এবং রাষ্ট্রপতির সুপারিশ নেওয়ার সুবিধার্থে সংসদ ভবনে তার উপস্থিতির ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এবারও তাই হতে যাচ্ছে।
আগামী ১১ জুন বিকেলে অর্থমন্ত্রী নতুন অর্থবছরের বাজেট উত্থাপন করবেন। এর আগে বিকেল ৩ টায় মন্ত্রিসভার বৈঠকে বাজেটের অনুমোদন দেওয়া হবে।
মন্ত্রনালয় সূত্রে জানা যায়, অর্থবিভাগ ২০২০-২১ অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) জন্য ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে। যা চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৬ শতাংশ বেশি। এ উন্নয়ন বরাদ্দের মধ্যে সরকারের নিজস্ব অর্থ ১ লাখ ৩৪ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকা ও বিদেশি সাহায্যের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৭০ হাজার ৫০২ কোটি টাকা।
এছাড়া আগামী অর্থবছরের বাজেটে খাদ্য নিরাপত্তার বিষয়টিও সামনে রাখা হবে। করোনা ভাইরাসের কারণে হঠাৎ চাকরি হারানো লাখ লাখ মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা কিভাবে কম খরচে নিশ্চিত করা যায়, সে বিষয়টিও ভাবছে সরকার। এজন্য এরই মধ্যে করোনা মোকাবিলায় কৃষিখাতে প্রণোদনার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।
পাশাপাশি জনগণের অর্থনৈতিক সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার লক্ষ্য নিয়ে আগামী অর্থবছরের বাজেটে শারীরিক নিরাপত্তার কর্মসূচিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। সরকার ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নে ৯৫ হাজার ৬১৯ কোটি টাকাও বাজেট থেকে ব্যয় করা হবে। যা অভ্যন্তরীণ বা সামষ্টিক মোট উৎপাদনের ৩ দশমিক ৫ শতাংশের সমান।
এদিকে রোববার অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, আগামী বাজেটকে আরও অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে ওয়েবসাইটের মাধ্যম সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছ থেকে মতামত গ্রহণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। নতুন অর্থবছরের বাজেট প্রণয়নের আগে স্টেকহোল্ডাররা এখানে মতামত প্রদান করতে পারবেন।
অর্থ বিভাগের ওয়েরসাইটে গিয়ে জাতীয় বাজেট ২০২০-২১ প্রণয়নে মতামত/পরামর্শ (Opinion/Suggestion for Budget 2020-21 Preparation) এই অপশনে ক্লিক করেই যে কেউ তার মতামত প্রদান করতে পারবেন।
দেশে বা বিদেশে থেকেও ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বাজেট প্রণয়নের ফরম পূরণ করে মতামত ও সুপারিশ দেয়া যাবে। প্রাপ্ত সব মতামত ও সুপারিশ বিবেচনা করা হবে।
সূত্র, বাংলাদেশ জার্নাল

0 comments: