Monday, May 4, 2020

হাঁস পালন করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন প্রতিবন্ধি যুবক আকরাম



মোস্তাফিজ কচি :--- হাঁস পালন করে সৎপথে রোজগার করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন দামুড়হুদা উপজেলা নাপিতখালির প্রতিবন্ধি  যুবক আকরাম হোসেন। এ লক্ষে তারা কয়েকজন শ্রমিক সাথে নিয়ে নাপিত খালি মরা গাং নামে মাঠে অস্থায়ী খামার তৈরী করেছেন। খামারে হাঁসের সংখ্যা ৭'শ/৮শ।সকাল হলেই হাঁসের পাল ছেড়ে দেওয়া হয় জমিতে। পুরোদিন জমিতে পরিত্যক্ত ধান খাওয়ার পর সন্ধ্যায় আবার হাঁসগুলো খামারে আটকে রাখা হয়।সরেজমিন পরিদর্শনকালে হাঁসখামারি দামুড়হুদা উপজেলার নাপিতখালি গ্রামের সানোয়ার হোসেনের ছেলে প্রতিবন্ধি আকরাম হোসেন (২৩)  এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন লিজকৃত জমিতে গত দুই মাস ধরে বেলজিয়াম ও ক্যাম্বেল প্রজাতির হাঁস চাষ করছি। মনযোগ দিয়ে হাঁস পালন শুরু করছি। সে আশা করছেন লাভবান হবেন।তিনি জানান,মেহেরপুর জেলার কুলচারা  গ্রাম  থেকে হাঁসের বাচ্চাগুলো ক্রয় করে নিয়ে এসেছেন।প্রায় ৪ মাস লালন পালনের পর হাঁসগুলো ডিম দেওয়া শুরু করবে।এবারের হাঁসের ডিম বিক্রি করে তারা লাভ হতে জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন।এ খামারের শ্রমিক নাসির উদ্দিন বলেন, সারাদিন তিনি হাঁসের পাল নিয়ে লিজকৃত জমিতে  অবস্থান করেন। এবার হাঁস পালনে মালিকরা লাভবান হবেন বলে তিনি আশাবাদী।দামুড়হুদা উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মশিউর রহমান জানান, হাঁস খামারিদেরকে স্বাবলম্বী করতে তারা বিভিন্নভাবে পরামর্শ প্রদান করছেন। খামারিরাও সমস্যা নিয়ে তাদের কাছে আসছে।তিনি আরো জানান, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে হাঁস পালন করে অনেক বেকার যুবক স্বাবলম্বী হয়েছে।


0 comments: