Thursday, May 7, 2020

দর্শনা রেলবাজারের মুদিখানা, আড়ত, কসমেটিকস ও ফলের দোকানে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযান

নিউজ ডেস্ক।হ্যান্ডওয়াশ রিফিল প্যাকের মুল্য মুছে নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত মুল্য।
পবিত্র রমজান উপলক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মহোদয়ের সার্বিক নির্দেশনায়, পরিচালক প্রশাসন এবং জেলা প্রশাসক মহোদয়, চুয়াডাঙ্গার সার্বিক তত্ত্বাবধানে আজ ০৭.০৫.২০২০ তারিখে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা রেলবাজারের মুদিখানা, আড়ত ও বিভিন্ন দোকানে অভিযান পরিচালনা করে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, চুয়াডাঙ্গা।

অভিযানে আড়ত ও মুদিখানার দোকানগুলোতে আদা, পিয়াজ-রসুন, চাউল, ডালসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ক্রয় ও বিক্রয় রশিদ অনুযায়ী মুল্য যাচাই করা হয়।
এসময় অধিক মুল্যে পণ্য বিক্রয়, মুল্যতালিকা প্রদর্শন না করা, মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রয়, পণ্যের মোড়কীকরণ বিধি বহির্ভূত পন্য বিক্রয়, পণ্যের ক্রয় রশিদ সংরক্ষণ না করায় ০৩টি প্রতিষ্ঠানকে সতর্কতামূলক ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ অনুযায়ী ১১,০০০/- টাকা জরিমানা করা হয়।
এর মধ্যে মেসার্স এস আর ট্রেডার্সকে ৫,০০০/- টাকা, মেসার্স নজরুল স্টোরকে ২,০০০/- টাকা, এবং মেসার্স আলাউদ্দিন স্টোরকে ৪,০০০/- টাকা জরিমানা করা হয়।
এখানে উল্লেখ্য মেসার্স আলাউদ্দিন স্টোর লাইফবয় হ্যান্ডওয়াশ রিফিল প্যাকের প্রকৃত মুল্য মুছে দিয়ে অধিক মুল্যে বিক্রয় করে আসছিল। (ছবি সংযুক্ত)
এসময় প্রত্যেক ব্যবসায়ীকে বাধ্যতামূলকভাবে প্রতিটি পণ্যের ক্রয় রশিদ সংরক্ষণ ও মুল্যতালিকা প্রদর্শন করতে বলা হয়।

অভিযান পরিচালনা করেন জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জনাব সজল আহম্মেদ।

সহযোগিতায় ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনের একটি টিম।
জনস্বার্থে এ অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।

0 comments: